Google Ad Sense এ Apply করার আগে যে ১০ টি কাজ করতে হবে

Google AdSense অনলাইন ভিত্তিক সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপনি সংস্থা। তাদের বিজ্ঞাপনের উচ্চ মূল্যের

Click Rate এবং আরও বিশেষ সুবিধা জন্য সব ধরনের ব্লগার এবং ওয়েবমাষ্টাররা তাদের ব্লগে

Google AdSense ব্যবহার করে অনলাইন হতে আয় করতে চায়। তবে অধিকাংশ ব্লগাররা তাদের

অজ্ঞতার কারনে Google AdSense অনুমোদন করতে ব্যর্থ হয়। অথচ সামান্য কিছু টিপস অনুসরণ

এবং ধৈর্য ধারণ করে চেষ্টা করলে খুব সহজেই অল্প দিনে Google AdSense অনুমোদন করা যায়।

নিচে আপনাদের সাথে শেয়ার করব Google AdSense এ Apply করার আগে যে কাজগুলি অবশ্যই

করতে হবে।

Google Ad Sense এ Apply

০১। কাষ্টম ডোমেইনঃ

Google AdSense অনুমোদন পাওয়ার জন্য Domain অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অধিকাংশ নতুন

ব্লগার তাদের ব্লগে Sub-Domain (Blogspot.com অথবা WordPress.com) ব্যবহার করে

Google AdSense এর জন্য আবেদন করেন। যার ফলে দেখা গুগল তাদের আবেদন সরাসরি নাকুচ

করে দেয়। তবে এক সময় ছিল যখন Sub-Domain দিয়েও খুব সহজে AdSense অনুমোদন করা

যেত, কিন্তু সম্প্রতি এ বিষয়টি খুব বেশী কঠিন হয়ে গেছে। কাজেই বিষয়টি সহজ করার জন্য প্রথমে

একটি ভালমানের Custom Domain কিনে নিতে হবে। তাছাড়াও Custom Domain ব্যবহার

করলে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনেও বিশেষ কিছু সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

০২। Domain Age:

Google AdSense অনুমোদন পাওয়ার জন্য ডোমেইনের বয়সও আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

AdSense এর জন্য আবেদন করার আগে আপনার ডোমেইনের বয়স কমপক্ষে ২/৩ মাস হতে হবে।

তবে ডোমেইনের বয়স ৬ মাস হওয়ার পর AdSense এর আবেদন করাটা সবচেয়ে ভাল। তাছাড়া

এশিয়ার বেশ কিছু দেশ রয়েছে যেগুলিতে ৬ মাস না হওয়া পর্যন্ত ব্লগার দিয়ে AdSense জন্য আবেদন

করার সুযোগই পাওয়া যায় না।

০৩। ব্লগ Design এবং Loading Speed:

আপনার ব্লগার টেমপ্লেটটি বা ওয়েবসাইটটি অবশ্যই User Friendly এবং দেখতে আকর্ষণীয় হতে

হবে। পাঠকরা যাতে সহজে যে কোন ধরনের বা সাইজের ডিভাইস থেকে ব্লগের বিষয়বস্তু পড়তে পারে।

ব্লগের Header, Post, Sidebar এবং Footer সবগুলি অংশে যাতে Google AdSense এর কোড

বসানো যায়। তাছাড়া আপনার ব্লগটির Loading Speed অবশ্যই ভাল হতে হবে। তা না হলে Slow

গতীর ব্লগে কোনভাবেই আশানুরূপ ভিজিটর পাবেন না।

০৪। Search Engine Friendly:

আপনার ব্লগের টেমপ্লেট এবং প্রত্যেকটি পোষ্ট সার্চ ইঞ্জিন Friendly হতে হবে। এটি যে কোন ব্লগকে

দ্রুত Google AdSense অনুমোদন পেতে সাহায্য করবে। তাছাড়া Google AdSense এর Robot

রয়েছে, যেটি আপনার ব্লগকে স্ক্যান করে নেবে। এ ক্ষেত্রে ব্লগের প্রত্যেকটি পোষ্ট সার্চ ইঞ্জিন Friendly না

হলে AdSense অনুমোদন করবে না। তাহলে অবশ্যই আপনাকে SEO এর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

০৫। পর্যাপ্ত Content:

একটা কথা মনে রাখবেন সবকিছুর মূলেই হচ্ছে ব্লগের Content. আপনার ব্লগে যত ভালমানের

Content থাকবে তত বেশী ভিজিটর পাবেন। কাজেই নিয়মিত ভালমানের কনটেন্ট শেয়ার করতে

হবে। Google AdSense এ আবেদন করার পূর্বে আপনার ব্লগে কমপক্ষে ২০/২৫ টি ভালমানের

ইউনিক পোষ্ট থাকতে হবে। ব্লগের প্রত্যেকটি Categories এ কমপক্ষে ৫ টি করে পোষ্ট হতে হবে।

০৬। প্রতিটি Posts এর Limit:

প্রত্যেক পোষ্টে অবশ্যই পরিমানমত লেখা থাকতে হবে। শুধু কোনরকম ২০/২৫ টি পোষ্ট করলেই আপনি

Google AdSense পাওয়ার জন্য আশা করতে পারেন না। গুগল বট আপনাকে AdSense অনুমোদন

দেয়ার আগে এটাও জেনে নেবে যে, প্রত্যেকটি পোষ্টে কি পরিমান লেখা রয়েছে। প্রতিটি পোষ্ট মিনিমাম

৫০০/৬০০ টি ভালমানের Words এর সমন্বয়ে হতে হবে।

০৭। কিছু গুরুত্বপূর্ণ Pages:

ব্লগের জন্য কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ Pages যেমন- About Us, Privacy Policy এবং Contact Us

পেজ রাখা আবশ্যক। কয়েক বৎসর আগে Google AdSense Team একটি নিয়ম করেছিল যে,

প্রত্যেকটি ব্লগের অবশ্যই Privacy Policy পেজ রাখতেই হবে। তারই নিয়মে অবশ্যই বাকি পেজগুলিও

রাখাটা ভাল।

০৮। নাম, বয়স এবং ইমেইলঃ

আপনার নাম, বয়স এবং ইমেইল এড্রেস অবশ্যই Google Account এবং Contact Us পেজে

ব্যবহৃতটির মাধ্যমে করবেন। এতেকরে Google AdSense রোবট সহজে আপনার নাম, বয়স এবং

ইমেইল এড্রেস সম্পর্কে নিশ্চিত হবে পারবে। তাছাড়া Google AdSense এ আবেদন করার জন্য

আপনার বয়স অবশ্যই ১৮ বৎসর হতে হবে।

০৯। সার্চ ইঞ্জিন হতে ভিজিটরঃ

সার্চ ইঞ্জিন হতে ভিজিটর পেলে আপনার ব্লগের জন্য Google AdSense পাওয়া আরও সহজ হয়ে যায়।

কারণ যে ব্লগে গুগল সার্চ ইঞ্জিন হতে ভিজিটর আসে সে ব্লগকে গুগল বেশী পছন্দ করে। কাজেই সার্চ ইঞ্জিন

হতে ভিজিটর পাওয়ার জন্য ভালভাবে SEO অনুসরণ করতে হবে। আপনার ব্লগে যদি ভিজিটর কম

থাকে তাহলে AdSense পাওয়ার আশা করতে পারেন না। Google AdSense পাওয়ার জন্য

আপনার ব্লগে প্রতিদিন কমপক্ষে ২০০/৩০০ ইউনিক ভিজিটর থাকতে হবে।

১০। অন্য বিজ্ঞাপন না দেওয়াঃ

আপনার ব্লগে যদি অন্য কোন ধরনের PPC বিজ্ঞাপন ব্যবহার করেন তাহলে Google AdSense এ

আবেদন করার পূর্বে তা সরিয়ে নিতে হবে। অন্যথায় গুগল আপনার ব্লগে AdSense অনুমোদন করবে

না। কারণ Google AdSense তাদের বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি অন্য কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দেখাতে

পছন্দ করে না।

সর্বশেষঃ

উপরের সবগুলি ধাপ ভালভাবে অনুসরণ করলে নিঃসন্দেহে যে কোন ব্লগার তাদের ব্লগে প্রথমবার

Apply করেই Google AdSense অনুমোদন করতে পারবে। সুতরাং আপনি যদি আপনার প্রিয় ব্লগে

Google AdSense ব্যবহার করে অনলাইন হতে আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই আগে ব্লগটিকে

ভালভাবে ঠিকঠাক করে নিতে হবে। কেবল তবেই Google AdSense পাওয়া সোনার হরিনের মত না

হয়ে একদম সহজ মনে হবে।

লেখা গুলো পড়ে ভালো লাগলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদেরকে শেয়ার করতে ভুলবেন না । আপনার

সুচিন্তিত মতামত আমার একান্ত কাম্য। তাই এই বিষয়ে আপনার যদি কোন মতামত থেকে থাকে তাহলে

অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। আমি আনন্দের সহিত আপনার মতামত গুলো পর্যালোচনা করে

রেপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করবো।

ভাল থাকবেন।

simonpan

শিমন পান হলেন , এই ওয়েব সাইটের একজন প্রফেশনাল এফিলিয়েট মার্কেটার। এফিলিয়েট মার্কেটিং বিষয়ক খুঁটিনাটি বিষয়বস্তূ নিয়ে আলোচনা করা এবং মাতৃভাষা বাংলাতেই কিভাবে একজন ব্যাক্তি জিরো থেকে শুরু করে সফলতার শীর্ষে অবস্থান করতে পারেন তা নিয়ে আলোচনা করাই এই ওয়েবসাইট এর মূল উদ্দেশ্য । তিনি অনলাইনে কাজ শুরু করেন ২০১৮ সালের জানুয়ারী মাসে । তার প্রথন সাইটটির নাম হল www.makemoneywithdada.com এফিলিয়েট মার্কেটিং বিষয়ক বিভিন্ন আপডেট পেতে নিয়মিত এ ওয়েবসাইট টি ভিসিট করুন। যেকোনো তথ্যের জন্য যোগাযোগ করুন :- simonpanbd@gmail.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *