Facebook কে অযথা সময় ব্যায় না করে আয় করুন ।

Facebook ওয়েব সাইট টির সঙ্গে আমরা সবাই পরিচিত ।কারন আমাদের এখকার সময়ে বড়  যোগাযোগের মাধ্যম হলো এটি তাই নয় কি । হ্যাঁ এটাই সত্য ।  Facebook এর উপকারিতা :  বড় যোগাযোগের মাধ্যম হল Facebook  ছবি আদান ও প্রদানের মাধ্যম  বিভিন্ন লেখা অন্যেদের কাছে পেীছে দেওয়া যায়।  নিজের মত প্র্রকাশ করা যায় ।  বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নে তার অবদান অনেক  ব্যাবসায়ের দিক থেকে বড় একটি জাযগা ।  ভিডিও তে কথা বলা যায় ।  বন্ধুত্ব করা যায় পৃথিবীর যে কোন মানুষের সাথে যদি তার একটি এ্যাকাউন্ট থাকে ।  এছাড়া আরো অনেক দিক থেকে Facebook আমাদের সাহায্য করে থাকে । কিন্তু প্রশ্ন হলো এখান  থেকে আপনি কোন টাকা আয় করেছেন কি ? আমি সেই পথটি আজ আপনাদের কে দেখাবো ।আপনি  যতটা সময় Facebook ব্যায় করেন ।টিক তার চেয়ে কম সময় ব্যায় করে আয় করতে পারেন।  আপনার কল্পনার চেয়ে অনেক টাকা ।  আরো জানুন: Facebook থেকে টাকা আয় করবেন যেভাবে (ভিডিও আপলোড কোরে) আপনি Facebook কে আপনার ছবি দিয়ে বিভিন্ন কন্টেন্ট দিয়ে মানুষের লাইক ও কমেন্ট পেয়ে আনন্দ  পেয়ে থাকেন ।তাই নয় কি ।কিন্তু এটা যদি আপনার নিজস্ব ওয়েব সাইটে হতো তাহলে কেমন হতো  বলুন তো ?হ্যাঁ ভাল হতো আপনি আনন্দ ও পেলেন পাশাপাশি টাকা আয় ও হয়ে গেল । কথাটি শুনে ভাল  লাগছে নিশ্চয় । এটায় সম্ভব।আপনি আপনার ছবি দিয়ে বিভিন্ন উন্নয়ন মুল্ক কন্টেন্ট লিখে Facebook  শেয়ার করুন ,তারপর আপনার বন্ধুরা লাইক ও কমেন্ট ও শেয়ার করবে এবং আপনার দেওয়া কন্টেন্ট  অনুযায়ী তারা আপনার প্রোডাক ক্রয় করবে ।তারপর কি টাকা আর টাকা আপনার সামানো পরিশ্রম  আপনাকে এনে দিতে পারে শান্তি আর শান্তি । তবে দেরি করছেন কেন ক্রয় করুন একটি ওয়েব সাইট । এবং পেীছে জান আপনি যেটা এতো দিন আশা করে আছেন । তার লক্ষ্যে ।  আপনি যদি করতে চান,  Namecheap কোম্পানির বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর বিষয়ে জানতে নিচে ক্লিক করুন: অনলাইনে বিভিন্ন কোম্পানী আছে যারা ডোমেন ও হোষ্টিং বিক্রি করে … Read more

আপনার জন্য এফিলিয়েট মার্কেটিং সাফল্য বয়ে আনবে ।

এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং আপনার জন্য একটি ভাল ক্যারিয়ার বয়ে আনতে পারে তা কখনো কি ভেবে দেখে  ছেন । হ্যাঁ এমন দিন আসছে যে সময় টা প্রতি টি মানুষ ঘরে বসে এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করবে ।কথাটি  শুনে অবাক হচেছন।আপনার জন্য এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সাফল্য বয়ে আনবে ।কিনা ? তার সস্পর্কে  এখন আমি যে কথাটি লিখতে চলেছি। তা যদি আপনা সাথে মিলে  যায়,তবে আপনি একজন ভাল  এ্যাফিলিয়েট মার্কেটর হতে পারবেন ।  আরো জানুন: এফিলিয়েট মার্কেটিং করার ১০ টি কারন এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং আপনার জন্য:  1. আমার একটি কম্পিউটার আছে এটি আমার মন মত ,এতে আমি কাজ করে আনন্দ পায় ।  2. আমার বাড়িতে ইন্টারনেট লাইন আছে ।  3.    আমার বাড়িতে কাজ করার জন্য আলাদা জায়গা আছে । যেখানে আমি কাজ করে আনন্দ পায়। আমাকে কেও সমস্যা করে না ।  4.  আমি স্বপ্ন দেখতে পছন্দ করি ,আমার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্য আমি অনেক পরিশ্রম করতে পারি আরো জানুন: একজন সফল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার হতে চান যা করতে হবে ? 5.    আমি বাংলা ভাষায় ভাল কথা বলতে পারি এবং বাংলা ভাষায় ভাল কন্টেন্ট লিখতে পারি।  6.   নতুন নতুন বিষয়ে গবেষণা করতে ও লিখতে আমার ভাল লাগে।  7.   কাজ করার সময় আমি চেস্টা করি যেন কোন ভুল না হয়।  8.  স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্য আমি সকল খারাপ পথ ছেড়ে কাজে মনোনিবেশ করতে পারি।  9.   আমি কখনো হার মানি না একটি কাজ শুরু করলে শেষ না করা অবধি আমি শান্ত হতে পারি না।  আরো জানুন: আমার দৃষ্টিতে প্যাসিভ ইনকাম সেরা ।আপনার … Read more

এফিলিয়েট মার্কেটিং কি ?কিভাবে শুরু করবেন ? তার সম্পর্কে জানুন।

আজ আমি বলবো এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি? কিভাবে শুরু করবো ? আজ এই ব্যাপার টা বিস্তারিত  আলোচনা করবো । যে কোন কাজ ই সঠিক ভাবে শুরু করতে না পারলে ভালো করা যায় না ।  এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি এবং কিভাবে কাজ শুরু করবেন, আপনার কি কি যোগ্যতা লাগবে, কোথা  থেকে শুরু করবেন এই সকল বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো ।  #ref-menu এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং:  সারা পৃথিবীর মানুষ টাকার পিছনে ছুটছে। চাকরি করার পাশাপাশি আরও দু পয়সা ইনকাম করার জন্য  সবাই মরিয়া। বেকারত্ব আমাদের পিষে মারছে। তো এমন পরিস্থিতিতে আমরা যদি অল্প খরচে অল্প কিছু  সময়ে অল্প কিছু কাজ করে টাকা আয় করতে পারি । ভাল হয় না।  প্রথমে জানতে হবে এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি: আপনি যখন আপনার ডিজিটার মার্কেটিং স্কিলটা ব্যাবহার করে অন্য কারও প্রডাক্ট অথবা সাভির্র্স মিশন ভিওিক প্রমোশন করবেন সেটা হবে এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হল একটি মাধ্যম যেখানে পাবলিসর এবং প্রডাক্ট প্রস্তুতকারি একত্রে সম্মিলিত  হয়ে প্রোডাক্ট মার্কেটিং ও বিক্রি করে যে আয় হয় তা ভাগাভাগি করে নেয়। কি এখনো বোঝেন নি ।  মনে করুন আমার একটি চায়ের দোকান আছে । আমার বন্ধু প্রতি ‍দিন এসে এক কাপ চা খেয়ে চলে যায় এখানে চায়ের দোকাদার হল প্রোডাক্ট প্রস্ততকারী এবং বন্ধু হল এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটর প্রোডাক্ট প্রস্তত কারী তার চা বিক্রি বেশি করার জন্য তার বন্ধুকে একটা বুদ্ধি দিলেন । তিনি যেন তার আরো বন্ধুদের  কে এনে এখান থেকে চা খাওয়ান । তাহলে তার বিক্রি বেড়ে যাবে । এবং প্রোডাক্ট বিক্রি বাবদ যে আয়  হবে । তার উপর কিছু কমিশন তাকে দেওয়ার নাম হল এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং । এবার মনে করি বুঝতে  পেরেছেন ।  #ref-menu এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবেন ?  মনে করুন আমার একটি ওয়েবসাইট আছে । যেখানে প্রচুর পরিমান ভিজিটর অথবা ফ্রেন্ডলিস্টে অনেক  ফ্রেন্ড আছে তাহলে আমি আমারসাইটে অথবা ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিয়ে ভিজিটরকে আকৃষ্ট করে প্রোডাক্ট   প্রস্তুত কারি প্রতিষ্ঠানের সাইটে পাঠিয়ে দিবেন আর এভাবে আপনার সাথে চুক্তি আনুযায়ী পেমেন্ট গ্রহন   করবেন। আবার চুক্তি অনুযায়ী আপনার অ্যাড এ ভিজিটর ক্লিক করলে ও আপনি অর্থ পেতে পারেন।  তবে মনে রাখবেন সাধারনত প্রডাক্ট বিক্রি না হওয়া পর্যন্ত পেমেন্ট পাবেন না । কিছু টপ এ্র্যাফিলিয়েট  মার্কেটিং সার্ভিস প্রদান কারি হলো Amazon,  Ebay , Google, ইত্যাদি । তাহলে এখন কি বুঝতে  পেরেছেন ,যে কিভাবে এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করবেন ।  #ref-menu পরিশেষে এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করলে শুধু আপনি লাভবান হবেন না ,পাশাপাশি প্রোডাক্ট প্রস্ততকারী ও  তারা যারা এখানে এসেছে । সুতরাং বলতে পারি যে এ্র্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করলে আপনি যেমন  লাভবান হবেন ।তেমনি সমাজ কেও সাহায্য করতে পারবেন ।  ধন্যবাদ  ভাল থাকবেন । 

মাএ ৪ ঘন্টা কাজ করে বাকি ২০ ঘন্টা আরাম আয়সে কাটান।

আপনার নিজেকে বদলানোর এটা উওম সময় ।কি ভাবছেন এটা কি সম্ভব হ্যাঁ আজ এটা সম্ভব আপনি আপনার নিজেকে বদলান মাএ আল্প সময়ে ।  আপনি প্রতি দিনের কাজে জান । তার একটা সময় আছে ।  . . নিশ্চয় ৪ ঘন্টা নয় । আমাদের দেশের পরিপেক্ষিতে দেখলে কি বুজবেন । হ্যাঁ এখানে প্রতিটি কাজই ৯টা থেকে ৫ টা বা তার চেয়ে বেশি , এর চেয়ে  কম  নয়।আজ কিন্তু এটা সম্ভব, অনলাইনে মাএ ৪ ঘন্টা সময় কাজের পিছনে দিয়ে বাকি সময়টা পরিবার ও বন্ধুকে সময় দিতে পারবেন। কাজ টি কি নিশ্চয়  বুজতে পারছেন । হ্যাঁ আমি এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এ কাজ করার কথা বলছি । এখানে আপনি কাজ করে  . 1.আরাম আয়সে দিন গুলো কাটাতে পারবেন ।  2.পারবেন আপনার পরিবার কে সময় দিতে।  . #ref-menu 3.সব সময় আপনার পরিবার সঙ্গে বেড়াতে যেতে পারবেন।  4.আপনার বন্ধুকে সময় দিতে কোন সমস্যা হবে না।  5.আপনি আপনার সমাজকেও সময় দিতে পারবেন ।  . আরো জানুন: ২০টি বিজনেস আইডিয়া, শুরু করুন যে কোনটি। . তাহলে কি বলেন এই কাজ টা করা যায় । হ্যাঁ করা যায় । দিনে চার ঘন্টা কাজ আর বাকি ২০ ঘন্টা নিজের ও পরিবার ,পরিজন নিয়ে থাকা ও  সময় কাটানোর মজায় আলাদা ।  আজ এ পযর্র্ন্ত , ভাল থাকবেন । 

বাংলা ভাষায় কন্টেন্ট তৈরী করে আয় করুন ২০ হাজার বা তারও বেশি টাকা ।

বাংলা ভাষা আমাদের মাতৃভাষা, আর এ ভাষাতে আপনি ও আমি কথা বলি।আর বাংলা ভাষায় ওয়েবসাইট, এই ভাষাতেই কন্টেন্ট তৈরী করে  আয় করা যায় ২০ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা । বিশ্বাস হচেছ না ।  . আরো পড়ুন : ঘরে বসে আয় করুন, বাগডুম এফিলিয়েট র্মাকেটিং শুরু করুন . হ্যাঁ এটায় সত্য,  আপনি চাইলেই এখন আপনার মাতৃভাষা বাংলাতেই কন্টেন্ট তৈরী করে আয় করতে পারেন। প্রথমে আপনি এমন একটা নিশ  তৈরি করুন যার উপর ভিক্তি করে কন্টেন্ট তৈরি করতে হবে । যেমন আমার এই সাইটের নিশ হলো এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে কিভাবে আয়  করা যায় । এখানে আপনি যে বিষয়ে দক্ষ সে বিষয়ে কন্টেন্ট তৈরী  করে আয় করতে পারেন । . . আরো পড়ুন : এফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রামগুলির জন্য কিভাবে আবেদন করবেন। আরো পড়ুন : এফিলিয়েট মার্কেটিং না চাকুরী কোনটি করবেন। . ভাল থাকুন, সঙ্গে থাকুন। 

কাজ করুন রুটিন মাফিক

কত টুকু কাজ করলে । আপনি ভাল থাকতে পারবেন তা কিন্তু আপনি নির্ধারন করতে পারবেন না । কারন আপনি অন্যের কাজ করছেন ।  সে বলে দেবে আপনার কাজের ধারা বাহি কতা।তাই নয় কি?  . . কিন্তু আপনি যখন এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন । তখন আপনি নিজেই নির্ধারন করতে পারবেন আপনার রুটিন। আমার কাজ মাএ চার  ঘন্টা দিনে ।এটায় আমার ফুলটাইম কাজ । আবাক হচ্ছেন । এটায় সত্য , আমি সারা দিন ও রাত মিলিয়ে চার ঘন্টা কাজ করি । আমার  কাজ শুরু হয় সকাল ৭ টা থেকে সকাল ১১ টা পযর্ন্ত তারপর আমি পরিবারকে সময় দেয়। তাহলে কি আপনি এ কাজ করবেন না। এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং আপনাকে এ কাজের সুন্দর পথ দেখিয়ে দেয়। সময়কে বাজিয়ে আপনার জীবনকে আরো মধুর করে তোলে। সুযোগ নেই, কিন্তু এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মধ্যে আছে। আপনি পারেন মাত্র ৪ ঘন্টা কাজ করে বাকি সময় আপনার পরিবারকে দিতে এবং  সমাজের ভাল কাজে অংশ গ্রহন করতে পরেন।  . আরো জানুন: এফিলিয়েট মাকেটিং কি ও কেন করবেন ? . এক নাগালে কাজ করতে থাকলে কাজের প্রতি আপনার অনহিয়া লেগে যায়। তখন আপনার কোন কাজ করতে ভাল লাগে না । কিন্তু  এফিলিয়েট মার্কেটিং এ কাজ করলে আপনার অনহিয়া তো লাগবে না । পাশা পাশি আপনি আনন্দে কাজ করতে পারবেন । তাই বলি  দুই দিনের এই দুনিয়ায় যদি কাজ আর কাজ থাকে । তবে জীবনের মানে কি কাজ । তবে আপনি যদি এ সুন্দর জীবনটা চান। যেখানে  কাজ আর কাজ না করে, টাকার পিছনে না ছুটে অল্প পরিশ্রম করলেই হবে্ । . তবে আপনি ও পেতে পারেন এ সুন্দর জীবন । তখন টাকার পিছে আপনাকে ছুটতে হবে না । টাকাই আপনার পিছনে ছুটবে । তখন  আপনি আমার মত সুন্দর একটি রুটিন বানিয়ে ফেলতে পারেন ।এবং ভাল থাকতে পারবেন । এই কারনে আমি প্রধান জীবিকা হিসেবে  এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কে বেচেঁ নিয়েছি । আপনি যদি করতে চান            Namecheap কোম্পানির বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর বিষয়ে জানতে নিচে ক্লিক করুন: Domains সর্ম্পকে ক্লিক … Read more

নিজেকে আর কত অন্যের হাতে বিক্রি করবেন(How much more will you sell yourself to others)

আমি যদি বলি, আপনি প্রতি নিযত অন্যের কাছে বিক্রি হচেছন।কত জন বিশ্বাস করবেন, আর কতজন অবিশ্বাস  করবেন না। হ্যাঁ এটায় সত্যে। কারন আপনি আপনার বুদ্ধি, মেধাকে প্রতি নিযত অন্যের কাছে  বিক্রি করছেন। চাকুরীতে গেলে আপনি অন্যের কাজ করছেন । অন্যের দেখানো পথে চলছেন । আপনি আপনার মেধা কেও বিক্রি করছেন প্রতি নিয়ত তাই নয় কি । আমার বন্ধু সুমন। সে তেমন বড় ঘরের সন্তান নয়।পরিবারের আবস্থা তেমন ভাল নয় । পড়াশুনার দিক থেকে সে খুবিই ভাল ।সে স্বপ্ন দেখতো পড়াশুনা শেষে ভাল একটি চাকুরী করবে । পরিবার পরিজন বন্ধুদের কে নিয়ে ভাল থাকবে। তাই কি হলো?  পড়ুন: বেকার হয়ে বসে আছেন ,চাকুরী পাচ্ছেন না । চিন্তা নাই এখানে আসুন পড়াশুনা শেষ করে সে ভাল একটি এ্র্রনজিও তে কাজ পেলো ।তার কাজ পাওয়াতে পরিবার, পরিজন, বন্ধুরা সকলে খুশি হলো।সে নিজে ও খুশি হলো ।এর  মধ্যে সে বিয়ে করে নতুন সংসার পেতে ফেললো । এভাবেবেস কয়েক বছর অতিবাহিত হলো , আস্তে আস্তে কাজের মাএা ও বারতে থাকলো, এবং সমস্যা ও  শুরু হতে লাগলো অনেক ধরনের, কি বলতে পারেন ‍কি সমস্যা হ্যাঁ আমি বলছি , তখন কাজের জায়গায় বেশি সময় দিতে হতো। বাবা-মা, বন্ধু বান্ধব, আত্মীয়স্বজন কে সময় দিতে পারতো না । নিজের পরিবারকেওসময় দিতে পারতো না সুমন ।একদিন সে চিন্তা করলো সে যে বেতন পায়, তার মেধা ও বুদ্ধি অনুযায়ী সেটা খুবিই কম, কিন্তু কি  করা যাবে  এ্র্রনজিও অল্প বেতন দিয়ে তাকে কিনে নিয়েচছ । সে কিছু করতে পারে না কারন তার হাত-পা বাধা স্বামাজিক প্রতিবন্ধকতার কাছে।  সময় দিতে  পারতো না সুমন ।একদিন সে চিন্তা করলো সে যে বেতন পায়, তার মেধা ও বুদ্ধি অনুযায়ী সেটা খুবিই কম,  কিন্তু কি করা  যাবে  এ্র্রনজিও অল্প বেতন দিয়ে তাকে কিনে নিয়েচছ । সে কিছু করতে পারে না কারন তার হাত-পা  বাধা স্বামাজিক প্রতিবন্ধকতার কাছে।  উঠে দাড়ান নিজেকে বদলানোর সময় এসেছে :  এর হাত থেকে সে নিজেকে কিভাবে মুক্ত করবে, ভাবতে থাকে ,আর চিন্তা করতে থাকে ,কি করা যায়। এবং অবশেষে সে খুজেঁ পায় । অনলাইন জগৎ  কারন ইন্টারনেটের কল্যানে যে কেউই চাইলে একটি  আরো জানুন: আপনি চাকুরী করছেন কিন্তু সন্তুষ্ট নন? তাহলে আমি আপনাকে সাহায্য করতে পারি। স্বাচ্ছন্দ্যময় ক্যারিয়ার গড়তে পারেন। তাই সে সিদ্ধান্ত নিলো । অনলাইনে কাজ করবে এবং নিজের ও পরিবারের ভবিষৎ গড়বে । তাই সে্  এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর কথা জানলো । দেখলো এবং সে নিজে … Read more

বাংলায় ভাষায় মাত্র ৬ থেকে ৭ দিনের মধ্যে এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করুন

  আপনি অনলাইনে এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চান । তাহলে আর দেরি করছেন কেন, এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এআপনি আপনার ক্যারিয়ার গড়তেপারেন খুবিই অল্প সময়ে এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং একটিমজার কাজ যেখানে আপনি আপনার কাজের টাকা তো পাবেন সঙ্গে পাবেন প্যাসিভ ইনকাম ।    প্যাসিভ ইনকাম কি?    প্যাসিভ ইনকাম হল সরাসরি কাজের সাথে যুক্ত না থেকেও যে ইনকাম করা যায় সেটিই হলো প্যাসিভ ইনকাম।    ইংরেজি সমস্যা :    ভাবছেন ইংরেজি পারি না, কি ভাবে আমি অনলাইনে এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর কাজ করবো । হ্যাঁ আমিবলছি ইংরেজি ভাষা  ছাড়া ও আপনি এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন … Read more

আজ নিজেকে অনেক হালকা মনে হচেছ।(Feeling a lot lighter today.)

  অনেক বছর চাকুরী করে নিজেকে যত না ভাল লাগাতে পেরেছি । তার চেয়ে ভাল লাগছে আজ থেকে অনলাইনে কাজ করবো এটা ভেবে। যা  হোক আজ বলবো , কেন আমি আজ এতো খুশি । বিষয় টি সামান্য হলে ও আমার দৃষ্টিতে এটা অনেক আনন্দের ও ভাল লাগার । অনেক বছর  চাকুরী করেছি ।    .গুগল এডসেন্স এর বিকল্প ওয়েবসাইট সর্ম্পকে আলোচনা। ৫টি সেরা বিজ্ঞাপন ওয়েবসাইট। . কিন্তু নিজেকে নিয়ে ভাবার মত কিছু ছিল না আমার জীবনে শুধু ছিল অমানুষিক পরিশ্রম ও কষ্ট ।ছিল না মনে কোন শান্তি। তাই সিদ্ধান্ত  নিয়ে ছিলাম যে অনলাইনে কাজ করবো । এবং নিজের আগামি দিনটাকে শান্তির, সুখের ও আনন্দের করবো ।  তাই আমি অনলাইনে বুঝে  শুনে এ্র্র্র্যাফিলিয়েট মাকেটিং এর কাজ করছি । আজ নিজেকে অনেক ভাগ্যবান মনে হচ্ছে ।  নিজে অনেক হালকা লাগছে … Read more

স্বপ্ন হোক পূরণ , অনলাইনে আগমন।(Let the dream come true, come online.)

হ্যালো বন্ধুরা,  কেমন আছেন । আশা করি ভাল আছেন। আমি শিমন পান , আজ আমি লিখতে চলেছি কেন আমি অনলাইন জগৎতে পর্দাপণ করলাম। সকলে আশা করে যে তার জীবনের চলাচলের পথটা সহজ হোক । সুন্দর ভাবে সে তার জীবনটা অতি বাহিত করুক। যেন কোন আর্থিক সমস্যা না থাকে । কিন্তু বাস্তব অবস্থায় এলে তা কিন্তু সম্ভব … Read more