AdSense এর আবেদন দীর্ঘ দিন Review এর অধীনে থাকে কেন?

কোন একটি জিনিসের যারা আবিষ্কারক আমরা তাদের নির্দেশনা না শুনে অন্যরা কি বলছে সেটি নিয়ে মাথা ঘামানো শুরু করে দেই। যার

ফলে অন্যের ভূল ব্যাখা শুনে নানা ধরনের টেনশনে পড়ে কোন সমস্যার সমাধান খোঁজে বের করতে পারি না। গুগল এ্যাডসেন্স হচ্ছে টেক

জায়েন্ট গুগল এর একটি নিজস্ব প্রোডাক্ট।

.

.

আমরা কারো নির্দেশনা না শুনে সরাসরি গুগল এ্যাডসেন্স এর নির্দেশনা শুনলে আপনি খুব সহজে এ্যাডসেন্স Review এর পূর্ণাঙ্গ সমাধান

পেয়ে যেতেন। একটি এ্যাডসেন্স আবেদন পেন্ডিং রাখার বিষয়ে গুগল এ্যাডসেন্স কি সামাধান দিচ্ছে এখন আমি বিষয়ে আলোচনা করব।

গুগল এ্যাডসেন্স টিম একটি এ্যাডসেন্স এর আবেদন পেন্ডিং রাখার দুটি কারন বলছে।

.

একটি হচ্ছে আপনার ব্লগ/ওয়েবসাইটে এ্যাডসেন্স কোড প্রয়োজনীয় স্থানে না বসানো এবং দ্বিতীয় কারণ বলছে ব্লগে পর্যাপ্ত পেজ ভিউ না থাকে।

.

এখানে আমি দুটি সমস্যা সম্পর্কে আপনাদের ক্লিয়ার করছি। আমার কথাটি বিশ্বাস না হলে গুগল এ্যাডসেন্স এর অফিসিয়াল সাইট ও

এ্যাডসেন্স এর অফিসিয়াল ইউটিউব ভিডিও হতে বিষয়টির সত্যতা যাচাই করে নিতে পারেন। তাহলে সংক্ষিপ্ত ভাবে আলোচনা করছি:-

.

১। প্রয়োজনীয় স্থানে এ্যাডসেন্স কোড না বসানোঃ

.

গুগল এ্যাডসেন্স এর আবেদন শুরুর পর এ্যাডসেন্স আবেদন সাবমিট করার পূর্বে এ্যাডসন্সের কোড ব্লগের থীমস এর অভ্যন্তরের <head>

ট্যাগের নিচে অথবা </head> ট্যাগের উপরে বসাতে হবে। তারপর কোড বসনোর পর আপনার আবেদনটি সাবমিট হয় বা গ্রহন করে

তার দিকে নজর রাখতে হবে। এ কাজটি করার পর আমরা আর কোথাও কোন কোড বসাই না। অথচ গুগল এ্যাডসেন্স সাথে সাথে

ইমেইলের মাধ্যমে জানিয়ে দেয় যে, আপনার ব্লগের প্রয়োজনীয় সকল স্থানে এ্যাডসেন্স কোড বসাতে হবে। এখানে প্রয়োজনীয় স্থান বলতে

.

আপনি যেখানে যেখানে এ্যাডসেন্স এর বিজ্ঞাপন শো করাতে চান সেই জায়গাগুলোকে বুঝায়। এ্যাডসেন্স এ বিষয়ে আরো বলে যে, আপনার

ব্লগের যে পোস্ট ও পেজগুলোতে বেশী ট্রাফিক রয়েছে আপনি অবশ্যই সেই পোস্টগুলোতে এ্যাডসেন্স কোড যুক্ত করে রাখবেন। তাহলে

এ্যাডসেন্স টিম আপনার ব্লগ সম্পর্কে সহজে ধারনা নিতে পারবে।

.

.

২। ব্লগের পেজ ভিউ কমঃ

এ জায়গায় ব্লগে পেজ বলতে সকল ধরনের পোস্ট বুঝানো হয়েছে। আপনার ব্লগের পেজ ভিউ খুব কম হলে এ্যাডসেন্স আপনার আবেদনটি

দীর্ঘ দিন Review এ রেখে দেয়। এ ক্ষেত্রে তারা আপনার আবেদন বাতিল না করে Review করার জন্য রাখে এবং ভিজিটর বাড়ছে কি

না এনালাইস করে। আসলে পেজ ভিউ প্রতিদিন কি পরিমানে হলে এ্যাডসেন্স আবেদন অনুমোদন করে সে বিষয়ে কোন সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা

দেয়নি। আমার কাছে মনে হয়েছে প্রতিদিন কমপক্ষে ১০০ পেজ ভিউ হলে গুগল এ্যাডসেন্স অনুমোদন করে। আমি ৫০ পেজ ভিউ দিয়েও

আমার ব্লগে এ্যাডসেন্স অনুমোদন পেয়েছি। তবে আমার ব্লগে প্রচুর পরিমানে ভালোমানের ইউনিক কনটেন্ট ছিল।

.

আমার পরামর্শঃ

আপনার কাজের সময় যদি এ ধরনের সমস্যা হলে আপনার করণীয় কি সে বিষয়ে ইতোপূর্বে ক্লিয়ার হয়ে গেছেন। প্রথম সমস্যাটি আপনি

খুব সহজে সমাধান করে নিতে পারবেন। তবে দ্বিতীয় সমস্যার জন্য আপনাকে অবশ্যই কাজ করে যেতে হবে। ব্লগের পেজ ভিউ বাড়ানোর

জন্য আপনাকে অবশ্যই নিয়মিত ভালোমানের পোস্ট শেয়ার করার পাশাপাশি সঠিকভাবে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করে যেতে হবে।

যেহেতু গুগল নিজে এই সমস্যার সমাধান বলছে সেহেতু আমার মনে হয় এটি অনুসরণ করলে অবশ্যই আপনার AdSense আবেদন দীর্ঘ

দিন Review এর অধীনে না রেখে অনুমোদন করে নিবে।

.

লেখা গুলো পড়ে ভালো লাগলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদেরকে শেয়ার করতে ভুলবেন না । আপনার সুচিন্তিত মতামত আমার একান্ত কাম্য।

তাই এই বিষয়ে আপনার যদি কোন মতামত থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। আমি আনন্দের সহিত আপনার

মতামত গুলো পর্যালোচনা করে রেপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করবো।

ভাল থাকবেন।

.

Leave a Comment