বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে আয় করার 10 টি উপায় সমূহ ( পাট-1 ) 10 Ways to Make Money Online from Bangladesh (Part-1)

আমরা বাংলাদেশের নাগরিক । এদেশে অনেক মানুষ আছে যারা পড়াশোনা শেষ করে কোন চাকুরী পাচ্ছেন না । ফলে বেকার হয়ে ঘরে বসে আসেন । আমি তাদের জন্য লিখছি । আসলে বেকার থাকা যে কি কস্টের তা বলে বোঝানো যাবে না ।

যে বেকার আছে সেই একমাএ বলতে পারে । তার কস্টের কথা,যা হোক আমি আজ আলোচনা করবো অনলাইনে আয় রোজগারের সঠিক উপায় সমূহ , আশা করি এটিআপনাদের জন্য একটা সহায়ক দিক হিসেবে কাজ করবে কারণ, অনলাইনে যে কিভাবে ঘরে বসে অনেকভাবে অর্থ উপার্জন করা যায়, তা এই নিবন্ধ পড়লে আপনি জানতে পারবেন।

তাহলে আসুন জেনে নেয় আপনি বাংলাদেশ থেকে অনলাইন কিভাবে আয় করবেন তার বিভিন্ন উপায়গুলো :  

1. ছবির তোলার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন 

যদি আপনি একজন ফটোগ্রাফার বা চিত্রগ্রাহক হয়ে থাকেন, তবে আপনার তোলা আকর্ষনীয় ছবিগুলো অনলাইনে বিক্রি করতে পারেন। অনলাইনের ডিজাইনার্‌রা তাদের প্রজেক্টের জন্যে অনেক ছবি খুঁজে থাকেন, আপনি তাদের কাছে ছবিগুলো বিক্রি করতে পারেন। আপনি চাইলে আপনার তোলা ছবিগুলো www.shutterstock.com  ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিক্রিও করতে পারো। 

 2. পিটিসি বা পেড-টু-ক্লিক এর মাধ্যমে আয়  

কোন রকম টাকা ইনভেস ছাড়ায় আপনি আয় করতে পারবেন এ সমস্ত সাইট থেকে ।পিটিসি বা পেড-টু-ক্লিক এর সাহায্যে আপনি ওয়েবসাইট শুধুমাত্র স্পনসরড্ সাইটগুলো‌তে ব্রাউজ করার জন্যে কিছু টাকা পাবেন। এতে আরো উপায় আছে যাতে ওয়েবসাইট সার্ফ করে,  ওয়েবসাইট দেখে আর ওয়েবসাইট সার্চ করে টাকা উপার্জন।

সত্যকথা বলতে কি, এই সাইটগলো আয়ের তুলনায় অনেক বেশী সময় অপচয় করে। এরা তোমার একেক ইউনিট এডের পেছনে তোমার ব্যয়ের তুলনায় খুবই কম টাকা দেয়। একটা জনপ্রিয় পিটিসি সাইট যারা ভালো অর্থ প্রদানও করে থাকে সেটি হচ্ছে- www.box02.com  এছাড়া আপনি আরো পিটিসি বা পেড-টু-ক্লিক সাইট পেতে চাইলে আপনি আমার এ লেখাটি পড়তে পারেন । 

 3. গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে আয় করুন : 

আপনার যদি কোন ওয়েবসাইট বা ব্লোক থেকে থাকে তবে আপনি গুগল এডসেন্সে থেকে আয় করতে পারেন ড়লার । তার জন্য আপনাকে আপনার সাইটে অনেক ট্রাফিক আনতে হবে । তারা আপনার লেখা পড়বে ।

এবং আপনার লেখার পাশে গুগল এডসেন্স তারা তদের বিভিন্ন বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে । ভিজিটররা যদি এসব বিজ্ঞাপন দেখে তবে আপনি কিছু ডলার পাবেন । গুগল এডসেন্সে সাইন আপ করার জন্য এখানে ক্লিক করুন : www.googleadsense.com 

 4. ব্যানার  বা  জাতীয় বিজ্ঞাপন বিক্রি করে আয় : 

যদি আপনার একটা প্রতিষ্ঠিত ওয়েবসাইট বা ব্লগ থাকে,  তবে বিজ্ঞাপনদাতারা আপনার ব্লগে তাদের বিজ্ঞাপন দিতে দ্বিধা বোধ বা কোন চিন্তা করবে না। একেই বলে, ব্যানার এডস্‌ অথবা সরাসরি ইনকামের সুযোগ।

আপনার  ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা যতো বেশি হবে আপনার পাঠকের সংখ্যা ও বাড়বে আর আপনার আয়ও বাড়তে থাকবে। 

 5. পেড রিভিউ-এর মাধ্যমে আয় করার কৌশল  

সার্ভে বা জরিপ একটা পুরাতন পদ্ধতি আর আমরা চাইলে এখান থেকে আয় করতে পারি । “সার্ভে” সাইটে গিয়ে আপনি সাইন আপ করে নেবন । যদি আয় করতে চান । তারপর সার্ভে বা জরিপ আসার অপক্ষা করবেন ।

সার্ভে ফর্ম পূরণ করে তোমার মতামত জানাবে, এখানেই কাজ শেষ । প্রতিটি সার্ভের জন্যে আপনি টাকা পাবেন। এখানে, এমন কিছু ব্যবস্থাও আছে যেখানে, ইমেইল পড়ার ও জবাব দেওয়ারও কাজ থাকে। সার্ভে সাইট হিসেবে অন্যতম জনপ্রিয় সাইট হচ্ছে- : https://www.surveysavvy.com/  আপনি চাইলে করতে পারেন । কোন রকম টাকা ইনভেস ছাড়ায় ।    

 6. নিবন্ধ লিখে আয় : 

আপনি ভাল লিখতে পারেন । তাহলে আপনি এখান থেকে আয় করতে পারেন । হয়তো এমন অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলো পাঠকদের লেখায় আপডেট হতে থাকে। কোন কোন সাইটে তারা লেখকদের সাথে তাদের আয় করা অর্থ ভাগ করে নেয়। আপনি এখানে বিভিন্ন নিবন্ধ লিখতে পারেন আর আপনার আর্টিকেল বা নিবন্ধ যতো বেশি পাঠক পড়বে,  আপনি ততো বেশি টাকা পাবেন । 

https://www.closewe.com/register

http://www.kivabe.in

 Suvong.com  

আপনি চাইলে আপনার লেখা এ সমস্ত সাইটে দিয়ে আয় করতে পারেন অনেক টাকা , তো বন্ধুরা আজিই শুরু করে দিন লেখালেখি আর আয় করুন অনেক টাকা । 

 7. নিজের মতামত প্রকাশ করে আয় করুন টাকা : 

অবিশ্বাস্য হলেও সত্য আপনি আপনার মতামত প্রকাশ করে আয় করতে পারেন টাকা । এটিই নতুন দিনের আয় করার একটি ভাল মাধ্যম,  এখন আপনি টাকা নিয়ে যেকোন ওয়েবসাইট বা কোম্পানীর ব্যাপারে আপনার মতামত দিয়ে একটা নিবন্ধ লিখে ফেলেন আপনার ব্লগে। পেড রিভিউ সাইটগুলো কল্যাণে, এখন তারা কোম্পানী বা ওয়েবসাইটগুলো আপনাকে তাদের ব্র্যান্ড, পন্য বা ওয়েবসাইটের বিষয়ে লেখার জন্যে অর্থ পরিশোধ করবে।

আপনার এই মতামত বা ব্লগ  তাদের নিয়ে বাজারে আলোড়ন সৃষ্টি করবে আর তারা পাবে অধিক পাঠক ও ক্রেতা। এরকম একটা জনপ্রিয় পেড্‌ রিভিউ সাইট হচ্ছে- https://socialspark.com/   আপনি আপনার মতামত প্রকাশ করে আয় করতে পারেন টাকা এ সাইট থেকে । 

 8. এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং-এর মাধ্যমে আয়  

 আপনি আপনার ওয়েবসাইটে যখন অন্যের কোন পন্যের প্রচার করবেন আর যখন সেই পন্য বিক্রি হবে, তখন আপনি এর থেকে কমিশন পাবেন। এখানে অনেক আধুনিক আর ভালো পন্য আছে যেগুলো বিক্রি করা যায় আর মানুষ কিনতেও আগ্রহী; আপনি একজন এ্যাফিলিয়েট হয়েও কাজ করতে পারেন।  

এ্যাফিলিয়েট মাকের্টিং এর জনপ্রিয় সাইট গুলো হলো : Ebay. Amazon. Click bank . 

9.ফ্রি-লেন্সিং কর্মী হিসেবে অর্থ উপার্জন : 

ঘরে বসে আপনি ফ্রি-লেন্সিং কাজ করে আয় করতে পারেন । এটা একটা চমৎকার সুযোগ। আপনার যদি ডাটা এন্ট্রি, গ্রাফিক্স ডিজাইন অথবা কার্ড তৈরি , বা বিভিন্ন বিক্রি করার অভিড্গতা থাকে  তাহলে,  আপনি অনলাইনে এসব কাজ করে আয়  করতে পারেন ।আপনি  চাইলে ফ্রিলেন্সিং ভিত্তিক একটা ক্যারিয়ারই গড়ে তুলতে পারেন । কিছু ভাল সাইটের নাম দিলাম আপনি দেখে বুঝে কাজ শুরু করে দিন । 

Fivver, People per work. Upwork. Freelancer  etc 

10.টুইটার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয় করা 

বিজ্ঞাপনদাতাগণ বর্তমানে তাদের ক্যাম্পেইন বা বিজ্ঞাপন উদ্যোগগুলো “টুইটার” বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতে চাচ্ছেন। এজন্যে,  আপনাকে কোন ব্লগ কিংবা ওয়েবসাইট থাকারও প্রয়োজন নেই। এমন অনেক কোম্পানী রয়েছে, যারা টুইটার বিজ্ঞাপনের কাজ করে থাকে যেমন-  

Magapai 

অতপর বন্ধুরা আজিই শুরু করে দিন আপনি যে কাজ টি পছন্দ করেন । আশা করি আমার লেখা আপনাদের কাজে আসবে । আমি আগামি পাটে আরো কয়েকটি সাইটের কাজের কথা বলবো আপনারা সেখান থেকেও কাজ করতে পারবেন । বন্ধুরা পরিশ্রম করলে তার ফল আপনি ভাল পাবেনই এটা আমি বিশ্বাস করি তো এগিয়ে চলুন । আপনার নিজস্ব গতিতে ভাল হবে ।

 

  • বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে আয় করার 10 টি উপায় সমূহ (পাট-2) 
  • অনলাইনে আয়ের টাকা বাংলাদেশে কিভাবে পাবেন ? 

Leave a Comment