বিট কয়েন থেকে আয় করার ৫টি উপায়

বিট কয়েন থেকে আয় করার ৫টি উপায়

বিট কয়েন থেকে আয় করা যায় এই কথাটি হয়তো আপনি ইতোমধ্যে শুনেছেন। আপনি নিশ্চয়ই চিন্তা

করছেন ১ বিট কয়েন তো অনেক টাকা। সুতরাং আমার পক্ষে বিট কয়েন কেনা সম্ভব নয়! আসলে ভয়

পাবার কোন কারণ নেই, কেননা আমাদের বাংলাদেশের টাকার ক্ষুদ্র অংশ যেমন পয়সা ঠিক তেমনি বিট

কয়েনের ক্ষুদ্র অংশ হচ্ছে সাতোশি (১০ হাজার সাতোশি = ১ বিট কয়েন)। বিট কয়েন নিয়ে এরকম

অনেক অদ্ভূত তথ্য রয়েছে যা আপনাকে অবাক করে দেবে। ছোট এই ভূমিকা পড়ে কিংবা পূর্বের বিট

কয়েন সম্পর্কে জ্ঞান থেকে আপনার মনে যদি বিট কয়েন থেকে আয় করা নিয়ে সামান্য আগ্রহ জন্মে

থাকে, তবে বলব আপনি সম্পূর্ণ লেখাটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। এই লেখাতে বিটকয়েন আয়ের

বিভিন্ন কৌশল নিয়ে আলোচনা করা হবে।

বিট কয়েন থেকে আয়ের আগে করণীয় কাজ:

1.বিট কয়েন আয়ের পদ্ধতি সম্পর্কে ভাল  জ্ঞান অর্জন করে নেওয়া।

2.বিট কয়েন আয়ের পদ্ধতির সম্ভাব্য ঝুঁকি এবং লাভ সম্পর্কে পূর্ব পরিকল্পনা করা।

3.মূলধন না থাকলে মাইক্রো জব কিংবা পিটিসির মতো ছোটখাটো কাজ করে প্রথম দিকে বিট কয়েন

সম্পর্কে ধারণা লাভ করা।

4.বিট কয়েন নিয়ে পূর্বে যারা কাজ করেছে কিংবা করছে তাদের থেকে ধারণা নেয়া। এক্ষেত্রে বিভিন্ন বিট

কয়েন ভিত্তিক ফোরাম সাইট গুলোতে নজর রাখা যেতে পারে।

1. পে টু ক্লিক (পিটিসি) ওয়েবসাইট:

পে টু ক্লিক সাইটের প্রধান কাজ হল বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে ক্লিক করা এবং ক্লিক করার পর দেখবেন একটি

নির্দিষ্ট পরিমাণ বিট কয়েন আপনার একাউন্টে জমা হবে। যদিও এ বিট কয়েনের পরিমাণ খুবই সামান্য ।

তবে মজার ব্যাপার হলো এখানে আপনাকে কোন অর্থ বিনিয়োগ করতে হবে না, শুধু পরিশ্রম করলেই

হচ্ছে। এ ধরনের কাজ মূলত নতুনদের জন্য ভালো, অভিজ্ঞদের জন্য এগুলো সময় নষ্ট ছাড়া কিছুই

নয়।তাই অনলাইনে যারা নতুন তারা প্রথম অবস্থায় এ কাজগুলো করতে পারেন।

জনপ্রিয় কিছু পিটিসি সাইট:
  • btc4ads Site
  • coinadder Site

2. বিট কয়েন অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম:

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং মূলত কোন কোম্পানির পণ্য বিক্রির মাধ্যমে কমিশন পাওয়া। অর্থাৎ আপনার

মাধ্যমে যদি কেউ উক্ত কোম্পানির পণ্য বা সেবা কিনে তবে আপনি ওই পণ্য বা সেবার  লাভের উপর

একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন লাভ করবেন। বিট কয়েনেও এরকম অ্যাফিলিয়েট পদ্ধতি রয়েছে। বিভিন্ন

ওয়েবসাইট এই ধরনের কাজ দিয়ে থাকে। তা আপনারা দেখতে পাবেন যদি এ কাজ করেন।

এখানে কাজ টি পদ্ধতিতে করা হয়।

1.প্রথমত একটি বিশ্বস্ত বিট কয়েন অ্যাফিলিয়েট সাইটে একাউন্ট খুলবেন।

2.একাউন্ট খোলার পর ওয়েবসাইট থেকে আপনাকে একটি লিংক দেয়া হবে।আপনার কাজ হল এই

লিংকটি বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া সাইট, ফোরাম এবং ব্লগে প্রচার করা। এমনভাবে লিংক শেয়ার করা

যাতে মানুষ লিঙ্কটিতে ক্লিক করতে আগ্রহী হয়।

3.তারপর এই লিংকে প্রবেশ করে যদি কেউ অ্যাকাউন্ট খোলে এবং এর মাধ্যমে বিট কয়েন লেনদেন

কিংবা বিট কয়েন ক্রয় করে থাকে তবে আপনি এর জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন পাবেন।

বিট কয়েন অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামের  জনপ্রিয় কিছু ওয়েবসাইট
  • coinbase
  • paxful
  • coinmama
  • trezor

3. মাইক্রো জব সাইট:

অনলাইনে এমন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যারা আপনাকে সামান্য কিছু কাজ করার মাধ্যমে বিট কয়েন

প্রদান করবে। সামান্য কাজকে মাইক্রো ওয়ার্ক নামেও অবহিত করা হয়। এ ধরনের কাজ গুলোর মধ্যে

উল্লেখযোগ্য হল ইউটিউবে ভিডিও দেখা কিংবা সার্ভে করার। তবে পিটিসি সাইট থেকে এ ধরনের সাইটে

আয়ের পরিমাণ তুলনামূলক বেশি।

জনপ্রিয় একটি মাইক্রো ওয়ার্ক সাইট হল
  • Bitcoinget

4. বিট কয়েন ট্রেডিং সাইট:

বিট কয়েন ট্রেডিংয়ে বড় অঙ্কের আয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। বিট কয়েন ট্রেড করার অর্থ, আপনি কম দামে

বিট কয়েন ক্রয় করে আপনার নিকট জমা রাখা আবার যখন দাম বৃদ্ধি পাবে তখন বেশি দামে এগুলো

বিক্রি করা। এর জন্য অবশ্য বিট কয়েন মার্কেট সম্পর্কে ভাল ধারণা থাকা প্রয়োজন । যেহেতু

ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেট তুলনামূলক কঠিন তাই বিট কয়েন সম্পর্কে যারা অভিজ্ঞ তাদের জন্য এটা অর্থ

উপার্জনের এর সবচাইতে বড় মাধ্যম। নতুন এবং অনভিজ্ঞদের জন্য এই পদ্ধতিটি খুব ঝুঁকিপূর্ণ। তাই

নতুনদের এই পদ্ধতিটি এড়িয়ে যাওয়াই নিরাপদ।

জনপ্রিয় কিছু ওয়েবসাইট:
  • coinbase
  • bittrex
  • kraken
  • luno
  • bitstamp

৫. বিট কয়েন লেখক সাইট:

বিভিন্ন ওয়েবসাইট তাদের ব্লগে বিট কয়েন সম্পর্কে লেখার জন্য লেখক ভাড়া করে থাকেন। আবার কিছু

কিছু ব্লগ আছে শুধুমাত্র বিট কয়েন নিয়ে লেখা পাবলিশ করে থাকে।  তাই আপনার যদি বিট কয়েন

সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকে তবে আপনি এই সেক্টর থেকে খুব ভালো পরিমাণ আয় করতে পারবেন। এ

সর্ম্পকে লেখালেখি করে।

বিটকয়েন সর্ম্পকে লেখার কিছু  জনপ্রিয় ওয়েবসাইট হল-
  • Bitcoin
  • Cryptosource
  • Cryptocoinsnews
  • Deepdotweb
  • Blockchainaliens
  • Buxlister

শেষ কথা

বিট কয়েন থেকে আয় করতে চাইলে আপনি এখান থেকে বেচে নিয়ে তা শুরু করতে পারেন। বিট কয়েন

থেকে আয় করা নিয়ে অনলাইনে অনেক লেখায় অতিরঞ্জন করা হয়। বাস্তবতা আসলে অনেকটাই কঠিন,

আয় করার জন্য আপনাকে প্রচুর পরিশ্রম করতে হবে এবং এই সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করতে হবে। উপরে

উল্লেখিত প্রত্যেকটা পদ্ধতি কার্যকরী তাই বিট কয়েন থেকে আয় করার জন্য উপরের যে কোন একটি

পদ্ধতি প্রথম দিকে নির্বাচন করতে পারেন। এসব পদ্ধতি ছাড়াও আরও অনেক পদ্ধতি আছে যা আপনি

কাজ করতে করতে জানবেন। তাহলে আপনি চাইলে আজ থেকে শুরু করতে পারেন। ভাল থাকবেন আজ

এ পযর্ন্ত।

simonpan

শিমন পান হলেন , এই ওয়েব সাইটের একজন প্রফেশনাল এফিলিয়েট মার্কেটার। এফিলিয়েট মার্কেটিং বিষয়ক খুঁটিনাটি বিষয়বস্তূ নিয়ে আলোচনা করা এবং মাতৃভাষা বাংলাতেই কিভাবে একজন ব্যাক্তি জিরো থেকে শুরু করে সফলতার শীর্ষে অবস্থান করতে পারেন তা নিয়ে আলোচনা করাই এই ওয়েবসাইট এর মূল উদ্দেশ্য । তিনি অনলাইনে কাজ শুরু করেন ২০১৮ সালের জানুয়ারী মাসে । তার প্রথন সাইটটির নাম হল www.makemoneywithdada.com । এফিলিয়েট মার্কেটিং বিষয়ক বিভিন্ন আপডেট পেতে নিয়মিত এ ওয়েবসাইট টি ভিসিট করুন। যেকোনো তথ্যের জন্য যোগাযোগ করুন :- simonpanbd@gmail.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *