ডিজিটার মার্কেটিং বলতে কি বুঝ? পর্ব-১

ডিজিটার মার্কেটিং বলতে কি বুঝ?
মার্কেটিং কি?
ডিজিটার মার্কেটিং কি?
ডিজিটার মার্কেটিং বলতে কি বুঝ?

বর্তমান সময়ে আমরা যে কথাটি শুনছি তা হল ডিজিটাল মার্কেটিং। কিন্তু আমরা প্রায় অনেক মানুষ

জানি না ডিজিটাল মার্কেটিং কি ? । এ বিষয়ে জানতে হলে অনলাইনে অনেক আর্টিকেল আছে, যেখান

থেকে আমরা কিছুটা ধারনা নিতে পারেন । কিন্তু সেখানে সম্পন্ন ধারনা পাবেন না । তাই আমি আমার

কন্টেন্ট এর মাধ্যমে আপনাদের কে বুঝানোর চেষ্টা করবো ডিজিটাল মার্কেটিং এবং এর কাজ কি ?

বর্তমানে ব্যবসায়ের সবচেয়ে বড় ও উন্নত শাখাটির নাম হলো ডিজিটাল মার্কেটিং।  আপনি কিভাবে

এখানে ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবসা শুরু করবেন এবং কি কি লাগবে এবং কিভাবে আপনার ব্যবসাকে

সমৃদ্ধ এবং খুব দ্রুত উন্নত করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করবো । আশা করি আপনারা আমার

লেখাটি পড়বেন মনোযোগ সহকারে

মার্কেটিং কি?

সাধারণত কোন পণ্যের প্রচার প্রচারণা কেই মার্কেটিং বোঝায়। নতুন বা পুরাতন পণ্যের বিক্রি প্রচার

ও প্রচারনা করার জন্য যে বাজার তৈরি করা হয় তাকে মাকের্টি বলে । কোন পণ্য বা সেবার প্রচার

প্রচারনা করার পর ওই পণ্যের ক্রেতা তৈরি করাই হল মার্কেটিং এর মূল বিষয়। কোন পণ্য বিক্রি করতে

চাইলে, প্রথম যে কাজটি হবে । ক্রেতা খুজে বের করতে হবে। আর এই গ্রাহক খুজে বের করার জন্য

সহজ ও সুন্দর পথটি হলো টেলিভিশন, রেডিও, সংবাদপত্র ইত্যাদি। কিন্ত বর্তমান সময়ে এই মাধ্যম থেকে

সবথেকে জনপ্রিয় মাধ্যম হল ইন্টারনেট ভিত্তিক মার্কেটিং যার নাম দেয়া হয়েছে ডিজিটাল মার্কেটিং।

অনলাইনে Digital Marketing এর গুরুত্ব অনেক। আপনি এখানে কাজ করে খুব সহজে ভাল টাকা

আয় করতে পারেন।

ডিজিটার মার্কেটিং কি?

বর্তমান যুগ হাই স্প্রিট ইন্টারনেটের যুগ।এখন ঘরে বসে মানুষ বিশ্বের সব খবর রাখছে।বলা যায় পৃথিবী

এখন হাতের মুঠোয় । এই ইন্টারনেট ব্যবস্থাকে কাজে লাগিয়ে যে ব্যবসায়িক মাধ্যম গড়ে উঠেছে তাকে

ডিজিটাল মার্কেটিং বলে। এককথায় বলা যায়- ডিজিটাল মার্কেটিং হল ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে

পণ্য,প্রতিষ্ঠান বা ব্র্যান্ডের প্রচারনাকে বোঝায়। ইন্টারনেট ব্যবস্থা  ডিজিটাল মার্কেটিং এর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ

ভাবে যুক্ত।যেমন- গুগল, ইউটিউব, বিভিন্ন ওয়েবসাইট, ফেসবুক সহ নানান সামাজিক যোগাযোগ

মাধ্যম।

পড়ুন: আমার প্রস্তাবিত অনলাইন ডিজিটার প্রোডাক সমূহগুলো

সুতরাং, “ডিজিটাল” হচ্ছে আধুনিক স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তিগত পরিবেশ আর “মার্কেটিং” হচ্ছে ক্রেতা

ভ্যালু সৃষ্টি এবং লক্ষ্যাস্থিত গ্রাহকদের কাছে তা পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক মুনাফা অর্জন

প্রক্রিয়া। আর ডিজিটাল মার্কেটিং হচ্ছে প্রথাগত মার্কেটিং, যেমন-টিভি,নিউজপেপার বিজ্ঞাপন, বিলবোর্ড,

অফার,কুপন, মূল্যছাড় ইত্যাদির বাইরে ইন্টারনেট, কম্পিউটার ও  সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তি ব্যবহার মাধ্যমে

মার্কেটিং প্রক্রিয়া। মার্কেটিং করা এতো সুজা কথা না । আপনি চাইলে পারবেন না। তার জন্য আপনাকে

অনেক পরিশ্রম করতে হবে।

আরো পড়ুন: এফিলিয়েট অনপেজ ও অফপেজ SEO শিখুন ।

মূলত,ডিজিটাল মার্কেটিং বলতে প্রযুক্তির বিস্ময়কর আশীর্বাদ  বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিন,

যেমন-Google, Yahoo, Bing ইত্যাদি;

বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া, যেমন-Facebook,Google +, Twitter, Reddit, LinkedIn,

Tumblr, Instragram, Pinterest ইত্যাদি এবং অন্যান্য

অনলাইন মাধ্যম যেমন-Website, Blog, Mobile & Computer apps, Email, Youtube

Video ইত্যাদির মাধ্যমে মার্কেটিং কার্যক্রম পরিচালনা করাকে বুঝায়।                      

ডিজিটাল মার্কেটিংকে আবার অন্য দিকে ইন্টারনেট মার্কেটিং বা অনলাইন মার্কেটিং ও বলা হয়।

আরো পড়ুন : ব্যাকরণগত প্রিমিয়াম পর্যালোচনা ২019

ইন্টারনেট বা ডিজিটাল মার্কেটিং হল মার্কেটিং এর যাবতীয় কার্যক্রমসমূহ ইন্টারনেট এর মাধ্যমে করা

কে বুঝায়। সহজ অর্থে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করে কোন পণ্য বা সেবার মার্কেটিং করা বা ইন্টারনেট

সেবা ব্যবহার করে কোন পণ্য বা সেবার যে প্রচার করা হয় তাকে ইন্টারনেট মার্কেটিং বলে।বর্তমান

সময়ে টেলিভিশন, রেডিও, সংবাদপত্র থেকে বেশী বাবহারিত মাধ্যম হল স্মার্টফোন এবং কম্পিউটার

বা ল্যাপটপ। আর এই দুটি জিনিসের অন্যতম প্রাণশক্তি হল ইন্টারনেট।

ডিজিটাল মার্কেটিং প্রথাগত মার্কেটিং এর তুলনায় অনেক বেশি ফলপ্রসূ ও সাশ্রয়ী। তাছাড়া বর্তমান

ব্যাবসায়- বাণিজ্য যতটা না সামাজিক তার চেয়ে বেশী ডিজিটাল।তাই মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে ডিজিটাল

মার্কেটিং অত্যন্ত প্রতিক্রিয়াপ্রবণ পরিগণ্য হিসেবে মর্যাদা পাচ্ছে। একটি ট্রেন্ডি পেশা ও যেকোনো দেশের

আর্থসামাজিক উন্নয়নের হাতিয়ার হিসেবে ডিজিটাল মার্কেটিং অত্যাধিক গুরুত্বপূর্ণ।

আরো পড়ুন : জি-মেইলের গুরুত্বর্পূণ ১০টি ব্যবহার সর্ম্পকে জানুন ।

এই প্রশ্নটির উত্তর সবাই গুছিয়ে বলতে না পারলে ও মার্কেটিং যে কী,তা আমরা মোটামুটি সবাই বুঝি।

সাধারণের মুখের ভাষায় বলতে গেলে বিক্রির ধান্দা। তাই অনেকে আবার মার্কেটিং বলতেই বিরূপ

ধারণা পুষে রাখেন।টিভিতে ছবি,খেলা,নাটক বা কোনো অনুষ্ঠানের মধ্যে বিজ্ঞাপন আসলেই রিমোটের

বাটন চাপতে কার্পণ্য করেন না।আজ একটু অন্যভাবে ভাবুন। একজন মার্কেটার হিসেবে আপনি মার্কেটিং

টা কি ভাবেন ?

পড়ুন : সুন্দর সমাধান “Gmail Account“ যেভাবে খুলবেন ।

ধরুন, আপনি বি,সি,এস প্রিপারেশনের জন্য কনফিডেন্স কোচিং সেন্টারে এডমিট নিলেন।তো ঐখানকার

শিক্ষকরা আপনাকে শিখাবে বিভিন্ন কলাকৌশল যা আপনি প্রয়োগ করে বি,সি,এসে চান্স পেতে পারেন।

এখানে শিক্ষকগণ কনফিডেন্স কোচিং কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নিয়োগকৃত।ঠিক একজন মার্কেটারও কোনো পণ্য

বা সেবা কোম্পানি দ্বারা নিয়োগকৃত শিক্ষক , যিনি লোকজনকে শিখান জীবনধারণের নিত্য প্রয়োজনীয়

পণ্য বা সেবার ব্যবহারের মাধ্যমে কিভাবে সরব্বোচ্চ উপযোগ পেতে পারে।একজন মার্কেটার  নতুন বা

বিদ্যমান  পণ্য বা সেবা সম্পর্কে সাধারণ মানুষের সকল জ্ঞান সংক্রান্ত প্রতিবন্ধকতা দূর করেন যা কিনা

ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান এবং ভোক্তা উভয়শ্রেণীর কল্যাণের জন্য। আর যে উপায়ে তিনি এই জ্ঞান বিতরণ

পড়ুন : অনলাইনে আয়ের বতর্মান অবস্থা জেনে নিন ।

করেন, তাই-ই মার্কেটিং।

সহজ ভাষায়, ডিজিটাল ডিভাইসে (যেমন, কম্পিউটার ও মোবাইল ফোন) কোন পণ্য বা সার্ভিসের

প্রচারণা চালানোকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলে। যেমন, আপনি ফেসবুক ব্রাউজ করার সময় কিছু স্পন্সরড

পোস্ট দেখতে পান। এগুলো ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের অংশ।

ডিজিটাল মার্কেটিং বা ডিজিটাল বাজারজাতকরণ হলো ডিজিটাল প্রযুক্তিসমূহ, মূলতঃ ইন্টারনেট,

এছাড়াও মুঠোফোন, প্রদর্শনী বিজ্ঞাপন এবং অন্য কোন ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করে পণ্য বা সেবা

সমূহের বাজারজাতকরণ।

আরো পড়ুন : “একদিন” আজ অথবা কাল। অথবা কোনদিন না ।

সব ধরনের বাজারজাতকরণ কার্যাবলী যেগুলো একটি বৈদ্যুতিক যন্ত্র বা ইন্টারনেট ব্যবহার করে

সেগুলো ডিজিটাল মার্কেটিং বা ডিজিটাল বাজারজাতকরণের আওতার মধ্যে পড়ে।

>ভোক্তাদের কাছে পৌঁছানোর জন্য ইন্টারনেট, মুঠোফোন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, সার্চ ইঞ্জিন এবং

অন্যান্য চ্যানেলসমূহের ব্যবহারকে ডিজিটাল মার্কেটিং বা ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়।

Leave a Comment