একটি ওয়েবসাইট থেকে আয় করুন একাধিক উপায়ে ।

আপনি আয় করতে পারেন একটি ওয়েবসাইট থেকে একধিক উপায়ে ,আপনার একটি ওয়েব সাইট থাকলে আপনি ঘরে বসে আয় করতে পারেন। যে সব  উপায়ে একটি ওয়েব সাইট থেকে আয় করা যায় তা  হলো। 

.

১.এফিলিয়েট মার্কেটিং করে          ২. পে পার ক্লিক এ্র্যাড থেকে 

৩.বিজ্ঞাপনের জায়গা বিক্রি করে  ৪.নিজস্ব ডিজিটাল প্রোডাক্ট বিক্রি করে 

৫.স্পন্সরড পোস্ট থেকে               ৬.ডোনেশন থেকে 

৭. ই কমার্স ব্যবসা করে              ৮.ওয়েবসাইট বিক্রি করে 

৯. সাবস্ক্রিপশন থেকে                  ১০.কোর্স বিক্রি করে 

১১.কোচিং করিয়ে                       ১২.কনসাল্টিং করে 

১৩.অন্যদেরকে অনুসরণ করে        ১৪.ইউ টিউব থেকে দেখিয়ে 

.

একটি ওয়েবসাইট থেকে আয়ের অনন্য সব উপায়গুলি বিশদ আলোচনা করা  হলো : 

 এফিলিয়েট মার্কেটিং করে 

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে একটি ওয়েব সাইট অনেক টাকা আয় করা যায় ।এ সম্পর্কে আমি বিশদ আলোচনা করেছি । আগের বেশ কযেকটি পোস্ট গুলিতে ভালো ভাবে অনুসরণ করলে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে আরো ভালভাবে জানতে পারবেন। 

পে পার ক্লিক এড থেকে 

এডসেন্স হলো গুগল এর পে পার ক্লিক এড নেটওয়ার্ক যা থেকে যে কেউই আয় শুরু করতে পারেন। আপনি আপনার ওয়েবসাইটে পে পার ক্লিক থেকে  আয় করতে পারেন। 

বিজ্ঞাপনের জায়গা বিক্রি করে 

আপনার যদি একটি ওয়েব সাইটি থাকে তাতে যদি বেশকিছু ভিজিটর হয়ে যায়, তখন আপনার ওয়েবসাইটটি কে কিন্তু একটি নিউজ পেপার  এর সাথে  তুলনা করা যায়। কারন প্র্রতি নিয়ত অসংখ্য লোক আপনার সাইটে ভিজিট  করে থাকে।এবং আপনার লেখা  পড়ে থাকে ।

 বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তাদের  বিজ্ঞাপন এই সমস্ত চ্যানেল এ দেয় যাতে করে অনেক মানুষ তাদের প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানতে পারে।  আর বিজ্ঞাপন  দিলেই  তো আপনি আপনার ওয়েবসাইটের কিছু জায়গা তাদের কাছে বিক্রি করে আয় করতে পারেন। 

 নিজস্ব ডিজিটাল প্রোডাক্ট বিক্রি করে 

আপনি ডিজিটালভাবে যেকোনো বিষয়ের ওপর একটি বই লিখতে পারেন যাকে ইবুক বলে।যেমন:গল্পের বই ,উপন্যাস,কবিতার বই ইত্যাদি। এরপর  আপনার  ওয়েব ভিজিটরদের কাছে আপনি নির্দ্বিধায় আপনার ইবুক বিক্রি করে তা থেকে আয় করতে পারেন। আপনার ওয়েবসাইটের একটি  পেজ  কে ডিজিটাল লাইব্রেরিতে রূপান্তর করতে পারেন। 

স্পন্সরড পোস্ট থেকে 

আপনার ওয়েবসাইটে  অনেক কোম্পানিই তাদের সম্পর্কে আপনাকে লিখতে বলতে ও তা আপনার ওয়েবসাইটেই পাবলিশ করতে বলতে পারে। তার  বিনিময়ে তারা আপনাকে একটি নির্দিষ্ট অংকের টাকা প্রদান করবে। এ ধরণের পোস্টকে স্পন্সরড পোস্ট বলে। 

ডোনেশন থেকে 

আপনি চাইলে আপনার ওয়েবসাইটি এ ধরণের ডোনেশন ভিত্তিক ওয়েবসাইট করতে পারেন। অনেক সংস্থা তাদের ফান্ড ক্রিয়েট করা জন্য এধরনেরর ওযেব সাইট খুলে থাকে। 

ইকমার্স ব্যবসা করে 

ই-কমার্স ব্যাবসা বলতে বুঝায় অনেক পণ্যের সমাহার,যেখানে অনেক পণ্য  বিক্রির জন্য থাকে। আপনি একটি ই-কমার্স সাইট তৈরী করে তা থেকে আয়  শুরু করতে পারেন। 

ওয়েবসাইট বিক্রি করে 

আপনার ওয়েবসাইট জনপ্রিয় হয়ে গেলে কিন্তু তা অনেক টাকার বিনিময়ে আপনি তা বিক্রি করে দিতে পারেন। 

 সাবস্ক্রিপশন থেকে 

আপনার সাইটের কনটেন্ট যদি খুব ভাল হয়।তখন আপনার ভিজিটর ও অনেক হবে। তখন আপনি আপনার কন্টেন্টগুলি একটি নির্দিষ্ট মাসিক সাবস্ক্রিপশন করে ভিজিটর দের পড়তে দিতে পারেন । 

কোর্স বিক্রি করে 

আপনি যদি কোনো বিষয়ের ওপর দক্ষ হন, তবে তার ওপর একটি কোর্স তৈরী করে তা আপনার ওয়েবসাইটের মাদ্ধমে বিক্রি করতে পারেন। 

কোচিং করিয়ে 

আপনি যদি কোনো বিষয়ের ওপর দক্ষ হন ।তবে আপনি কোচিং মত করে আপনার ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে পারেন।এটা লিখিত বা ভিডিও কলের মাধ্যমে হতে পারে । 

 কনসাল্টিং করে 

আপনি কোনো বিষয়ে অভিজ্ঞ হলে তা কনসাল্টিং করুন অনলাইনেই। আপনার ক্লায়েন্টকে আপনার মূল্যবান পরামর্শ দিয়ে আপনি আয় করতে পারেন  অনেক টাকা। 

অন্যদেরকে অনুসরণ করে 

আসলে একটি ওয়েবসাইট থেকে অনেকভাবেই আয় করা যায় এবং আপনি নিত্য নতুন আয়ের পথ পেতে পারেন যদি কিনা আপনি  অনন্য  ওয়েবসাইট  থেকে আয়কারীদের ফলো করেন। 

ইউ টিউব থেকে  

আপনি বিভিন্ন ভিডিও ইউ টিউবে ছেড়ে তা আপনার ওয়েব সাইটে লিংক করে দিয়ে আয় করতে পাবেন অনেক টাকা । 

সীমিত সময়ের জন্য বর্তমানে চলমান আকর্ষণীয় ছাড়সমূহ!

Namecheap Domain and Hosting আজিই কিনুন:

1.Stellar হোস্টিং ৫০% ডিসকাউন্ট

2. Stellar Plus হোস্টিং ২৬% ডিসকাউন্ট

3.Stellar Business হোস্টিং ২০% ডিসকাউন্ট

.Com ডোমেইন মাত্র ৮.৮৮ ডলার

এছাড়া আরো অনেক ভাবে আপনি আয় করতে পারেন একটি ওয়েব সাইট থেকে । 

Leave a Comment