আবেগ নিয়ে লেখা, বাণী।(Bengali writings about Emotional Moments).

আবেগ নিয়ে লেখা, বাণী।

মানুষ যদি তার জীবনে পরিবর্তন চায় তবে সর্বপ্রথম নিজেকে পরিবর্তন করতে হবে।

মানুষের মন যদি অনিয়ন্ত্রিত হয় তা মানুষকে বিভ্রান্তিতে ফেলে দেবে। মনকে সঠিক প্রশিক্ষণ দিতে পারলে চিন্তাগুলোও তোমার দাসত্ব মেনে নেবে।

ছেলেবেলা কবে হারিয়ে গেল বড় হয়ে ওঠার ফাঁকে, আজও কি কেউ বিকেল হলে ‘খেলবি’ বলে ডাকে? বাদলা দিনে মনে পড়ে ছেলেবেলার সেই গান, “বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর নদে এলো বান।

যতবার তোমাকে ভুলতে চাই বা ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করি তত বেশি করে তুমি আমার হৃদয়ের কাছাকাছি চলে আসো ; অভিমান বোধহয় ভালবাসা বাড়িয়ে দিয়ে যায়।

সত্যিকারের তোমাকে যে ভালোবাসে,সে কখনোই তোমাকে ভুলে থাকতে পারবে না বেশিক্ষণ ;হয়তো অভিমান করে কথা বলবে না কিছুক্ষণ তবু সে তোমাকেই মিস করবে সারাক্ষণ।

মন থেকে কাউকে নিজের থেকেও আপন ভাবলে তার অবহেলা সহ্য করার ক্ষমতা থাকে না।

আনন্দকে ভাগ করে নিলে দুটি জিনিস প্রাপ্ত করা যায়; একটি হচ্ছে জ্ঞান ও অপরটি হচ্ছে প্রেম।

ভালোবাসা দিয়ে পরকে আপন করা যায় আর সম্পর্ককে করে তোলা যায় আরও অনেক গভীর।

সম্পর্ক রক্তের বাঁধনে নয় অনুভূতির বাঁধনে তৈরি হয় যেখানে অনুভূতির বন্ধন থাকে সেখানে পর ও আপন হয়।

কারা যেন কানেকানে বলে গেল তুমি আজ আর আসবে না, মেঘেদের কোলে সাগরের তীরে খুঁজো না তাকে পাবেনা। অবুঝ এ মন, তবু তোমায়, খুঁজে বেড়ায়, এলোমেলো চোখে।

ভালোবাসা হলো বাতাসের মতো যা দেখতে পাওয়া যায় না তবে অনুভব করতে পারা যায়।

জীবনকে রঙিন করতে রঙের প্রয়োজন হয় না; প্রয়োজন একটি ভালো সম্পর্কের।

মায়া ত্যাগ করা শিখতে পারলে দেখবে কষ্ট ও কমে গেছে; কারণ মায়া জিনিসটা নেশার থেকেও খারাপ।

ছোট ছিলাম , সব ভুলে যেতাম সকলে বলত,’মনে রাখতে শেখো। বড় হলাম ,কিছু ভুলি না এখন । কিন্তু দুনিয়া বলছে,’ ভুলে যেতে শেখো’।

জীবনে সব ‘পেতে হয় না’, কিছু কিছু অপূর্ণতা ও সুন্দর। সব পেয়ে গেল জীবন আর ভালো লাগবে না, সব পানসে মনে হবে। প্রাপ্তি এবং অপ্রাপ্তির এই ছোট্ট জীবনটাই সুন্দর।

পৃথিবীর সবথেকে বড় মনোবিজ্ঞানী হলেন মা; যিনি মুখে বলার আগেই মনের সব কথা বুঝে ফেলেন।

তুমি মানুষকে যা দিয়েছো তার প্রতিদান আশা করে না; কারণ সবার হৃদয় তোমার মতো সুন্দর নাও হতে পারে।

Leave a Comment